গর্ভাবস্থায় কত মাস পর্যন্ত সহবাস করা উচিৎ ? তথ্যটি জেনে রাখুন অবশ্যই…

0
4688

গর্ভধারণ করার আগে পর্যন্ত সকল দম্পতিই সহবাস করেন। কিন্তু গর্ভধারণ করার পর সহবাস করা কতটা নিরাপদ ? এটি নিয়ে আমাদের মনের মধ্যে অনেক কনফিউশন থাকে। কেউ কেউ মনে করেন সহবাস করার উপযুক্ত সময় এটা। আবার কেউ কেউ এই সময়ে সহবাস করাকে নিরাপদ বলে মনে করেন না।

গর্ভাবস্থায় সহবাস কি নিরাপদ ঃ-

অনেকের মনেই প্রশ্ন জাগে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর সাথে সহবাস করলে আগামী সন্তানের কোন ক্ষতি হবে কি না। এক্ষেত্রে, যদি আপনার গর্ভকালীন অবস্থা স্বাভাবিক ভাবে চলমান থাকে তাহলে আপনি সন্তান গর্ভে থাকা অবস্থায় প্রসব বেদনা শুরু হওয়ার আগে পর্যন্ত সহবাস করতে পারেন।

গর্ভাবস্থায় সহবাস কি গর্ভের বাচ্চার কোন ক্ষতি করে ঃ-

সহবাসের সময় স্বাভাবিক নড়াচড়া গর্ভের শিশুর কোন ক্ষতি করে না। শিশু তলপেট এবং জরায়ুর শক্ত পেশী দ্বারা সুরক্ষিত থাকে। জরায়ুর মুখ মিউকাস প্লাগ দ্বারা সীল করা থাকে। সহবাসের সময় পুরুষেরে গোপনাঙ্গ গর্ভের শিশু পর্যন্ত পৌঁছায় না। তাই গর্ভে শিশুর ক্ষতির আশঙ্কা নেই।

গর্ভাবস্থায় সহবাস করা কখন নিরাপদ নয় ঃ-

গর্ভাবস্থায় সহবাস করা নিরাপদ নাও হতে পারে যদি আপনার গর্ভধারণে কোন জটিলতা থাকে বা আগের গর্ভধারণে আপনি কোন জটিলতার শিকার হয়ে থাকেন। যদি এই ধরনের কোন কিছু হয়ে থাকে তবে অবশ্যই আপনার ডাক্তারকে তা জানান এবং তার পরামর্শ অনুযায়ী চলার চেষ্টা করুন।

যেসব উপসর্গ থাকলে গর্ভাবস্থায় সহবাস থেকে বিরত থাকা উচিৎ ঃ-

যমজ সন্তানঃ গর্ভে যদি একের বেশি সন্তান থাকে তবে গর্ভাবস্থায় সহবাস থেকে বিরত থাকাই ভালো।

গর্ভপাতঃ যদি আগে গর্ভপাত হয়ে থাকে বা এবার গর্ভপাত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে সেক্ষেত্রে গর্ভাবস্থায় শারীরিক মিলন করা একদমই ঠিক নয়।

প্রি-টার্ম বার্থ বা প্রি-টার্ম লেবারঃ যদি এর আগে আপনি প্রি-ম্যাচিউর শিশুর জন্ম দিয়ে থাকেন বা এবার গর্ভধারণে প্রি-টার্ম লেবারের সম্ভাবনা আছে তবে সহবাস থেকে বিরত থাকুন।

ইনকম্পিটেন্ট সারভিক্সঃ যদি সারভিকাল ইনকম্পিটেন্সি বা ইনকম্পিটেন্ট সারভিক্স থাকে সেক্ষেত্রে সহবাস করা উচিত নয়। ইনকম্পিটেন্ট সারভিক্স বলতে বোঝায় যখন জরায়ু মুখ স্বাভাবিক সময়ের অনেক আগেই খুলে যায়।

প্লাসেন্টা প্রিভিয়াঃ যদি প্লাসেন্টা জরায়ুর নিচের দিকে অবস্থান করে এবং জরায়ু মুখ আংশিক কিংবা সম্পুর্নরূপে ঢেকে ফেলে তাহলে সহবাসের ফলে রক্তপাত এবং প্রাক প্রসব বেদনা শুরু হয়ে যেতে পারে।

গোপনাঙ্গ-সংক্রামন ব্যাধিঃ আপনার কিংবা আপনার স্বামীর কোন প্রকার গোপনাঙ্গ-সংক্রামন ব্যাধি থাকলে গর্ভকালীন মিলন থেকে বিরত থাকুন।

অস্বাভাবিকতাঃ যদি শারীরিক মিলনের সময় আপনি অস্বাভাবিক কিছু দেখেন যেমন – ব্যাথা বা যোনীপথে তরল নির্গত হওয়া, তবে সহবাস না করে অবশ্যয় ডাক্তারকে জানান।

তবে গর্ভাবস্থায় সহবাসের ইচ্ছা থাকলে সেটা ডাক্তারের সাথে আলচনা করে নিন। লজ্জা পাবেন না, তাতে আপনারই ক্ষতি। ডাক্তারের পরামর্শ নিয়েই সহবাস করুন। তাতে আপনিও সুখ পাবেন আর আপনার সন্তানও ভালো থাকবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here